ঈদগাঁওতে জমি জবর দখলের পাঁয়তারাঃ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা

প্রকাশ: ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১২:৪৪ : পূর্বাহ্ন

ঈদগাঁওতে এক মহিলার  জমি জবর দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে কুচক্রী চক্র । এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী মহিলাটি প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
প্রাপ্ত তথ্যে প্রকাশ, ঈদগাঁও জাগির পাড়ার হুমায়ুন কবিরের স্ত্রী নাজমুন নাহার ক্রয় ও হেবা দলিল মূলে উক্ত এলাকার ০.২২৮৬ একর জমির প্রকৃত মালিক হন।  তার নামে ওই জমির সৃজিত খতিয়ান (নম্বর-৭৪৩৫) চূড়ান্তভাবে প্রচার আছে। এতদসত্ত্বেও পার্শ্ববর্তী একদল কুচক্রী উক্ত জমি তাদের দখলে নিতে  নানা পাঁয়তারা চালিয়ে আসছে। জমির মালিককে এ চক্র প্রতিনিয়ত নানা কটূক্তি ও হুমকি-ধমকি দিচ্ছে । বিষয়টি নিয়ে জমির মালিক মহিলাটি ঈদগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালতে একটি সালিশ দেন । এর প্রেক্ষিতে উক্ত আদালতের তিনজন বিজ্ঞ বিচারক এ মর্মে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত দেন যে, সালিশ দাখিলকারী মহিলা ক্রয় মূলে উক্ত জমির প্রকৃত মালিক । সালিশকারকগণ হচ্ছেন ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সৈয়দ আলম,  ২ নং ওয়ার্ডের এমইউপি বজলুর রশিদ (বজল ) এবং  সংরক্ষিত ওয়ার্ডের এমইউপি জান্নাতুল ফেরদৌস।
জমির মালিক নাজমুন্নাহার জানান, তিনি ২০১১ সালে ৪৬৩৩ নং রেজিঃ ছাফ কবলা দলিল মুলে জিন্নাত আরা বেগম থেকে এবং একই বছর ৪৬৩৪ নং রেজিঃ হেবাকৃত দলিল মূলে মোসাম্মৎ হালিমা বেগম থেকে উক্ত জমি ক্রয়সূত্রে মালিক হয়ে শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ দখলে রয়েছেন। পরে পার্শ্ববর্তী ওমর মিয়া এ জমি তার দাবি করায় আমি গ্রাম আদালতের আশ্রয় নেই। আদালত ওই জমির আমি প্রকৃত মালিক বলে রায় প্রদান করেন।
এরপরও ওমর মিয়া ও তার তিন ছেলে ছলে বলে নানা কৌশলে আমার খরিদা জমি দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে। আমাকে নানা হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। এ ব্যাপারে আমি প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।