কুতুবদিয়া চ্যানেলে ফিশিং ট্রলার ডুবি : নিরাপদে তীরে ফিরল ৩০ মাঝি-মাল্লা

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১১:১৮ : পূর্বাহ্ন

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া(১১ সেপ্টেম্বর) :: কক্সবাজারের চকরিয়া থেকে সাগরে মাছ ধরতে যাওয়া এফবি নুরখতিজা নামের একটি ফিশিং ট্রলার ডুবে গেছে। তবে সাগরে মাছ আহরণরত অন্য একটি ফিশিং ট্রলারের সহায়তায় ডুবে যাওয়া ফিশিং ট্রলারের ৩০ মাঝি-মাল্লা নিরাপদে তীরে ফিরে আসতে সক্ষম হয়েছে।

এ ঘটনায় ৫০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতিসাধন হয়েছে বলে দাবি করেছেন ভুক্তভোগী ফিশিং ট্রলার মালিক জাফর আলম।

বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে কুতুবদিয়া চ্যানেলের দক্ষিণ পাশে সাগরে ঘটেছে ফিশিং ট্রলার ডুবির এ ঘটনা। এ ঘটনায় ডুবে যাওয়া ট্রলারটি উদ্ধারে নৌ-বাহিনী এবং কোষ্ট গার্ডের সহযোগিতা চেয়েছেন আক্রান্ত বোটের মালিক।

চকরিয়া পৌরসভা ৪নং ওয়ার্ডের সবুজবাগ আবাসিক এলাকার বাসিন্দা (আগের বাড়ি মহেশখালী উপজেলার ধলঘাট) মৃত নুরুল হকের ছেলে হাজী জাফর আলম জানিয়েছেন, তার মালিকানাধীন ৬৫ ইঞ্জিনের একটি ফিশিং ট্রলার (এফবি নুর খতিজা) বুধবার ভোরে চকরিয়ার বদরখালী থেকে ৩০জন মাঝি-মাল্লা নিয়ে সাগরে মাছ ধরতে যান।

এদিন সকাল ১০টার দিকে সাগরের কুতুবদিয়া চ্যানেলের দক্ষিণ পাশে পৌছলে যান্ত্রিক ক্রুটির কারণে ফিশিং ট্রলারের বাইন ফেটে তলদেশ দিয়ে পানি ঢুকে সাগরে ডুবে যায়। ওইসময় ফিশিং ট্রলারে ১৩টি বিহিঙ্গী জাল, ৬০টি তৈলের ড্রাম, খাবার সামগ্রীসহ সব মালামাল মজুদ ছিল। এতে তাঁর প্রায় ৫০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে।

তীরে ফিরে আসা এফবি নুর খতিজা ফিশিং ট্রলারের মাঝি মোহাম্মদ সাজু জানান, ডুবে যাওয়ার সময় মাছ আহরণরত অন্য ফিশিং ট্রলারের সহায়তায় তাঁর ফিশিং বোটে থাকা অন্তত ৩০জন মাঝি-মাল্লা তীরে ফিরতে আসতে সক্ষম হয়েছেন।