চকরিয়া পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি

প্রকাশ: ২ জুলাই, ২০১৯ ৯:৫৯ : পূর্বাহ্ন

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া
সরকারি কোষাগার থেকে পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীদের শতভাগ বেতন ভাতা প্রদানসহ পেনশন প্রথা চালু এবং জনপ্রতিনিধিদের সম্মানী ভাতা প্রদানের দাবীতে গতকাল সোমবার (১ জুলাই) সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টানা সাতঘন্টার কর্মবিরতি কর্মসুচি পালন করেছে চকরিয়া পৌরসভার সকল বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।
বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস এ্যাসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির আহবানে চকরিয়া পৌরসভা সার্ভিস এ্যাসোসিয়েশন গতকাল পৌর ভবন চত্বরে এ অবস্থান কর্মসুচি পালন করেন। এ সময় পৌরসভা প্রধান ফটক বন্ধ রেখে সকল কর্মকর্তা কর্মচারীরা কর্মবিরতি পালনের মাধ্যমে কর্মসূচিতে অংশ নেয়। এ অবস্থার কারণে অচল হয়ে পড়ে পৌরসভার প্রশাসনিক সকল কার্যক্রম।
বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস এ্যাসোসিয়েশন কক্সবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু রাশেদ মেহাম্মদ জাহেদ উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক রাজিবুল মোস্তফা এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন, পৌরসভা সার্ভিস এ্যাসোসিয়েশন চট্টগ্রাম বিভাগের উপদেষ্ঠা ও চকরিয়া পৌরসভার সচিব মাসউদ মোরশেদ, উপসহকারী প্রকৌশলী মৃনাল কান্তি ধর, সংগঠনের বিভাগীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক জহুরুল মাওলা, ফরিদুল আলম, চকরিয়া পৌরসভা কর্মচারী এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোস্তাক আহামদ, সাধারণ সম্পাদক আরিফুল মোস্তফা, সাবেক সভাপতি বশির আহমদ, মো.নাজিম উদ্দিন, উচচমান সহকারী ওসমান গনি, টিকাদানকারী মিনহাজ উদ্দিন ও অফিস সহকারী আব্দুল হামিদ প্রমুখ।
অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন, সরকারি সকল নিয়মনীতি মেনে পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা চাকুরী করে আসলেও সরকারি কোষাগার থেকে তারা কোন বেতন ভাতা পায়না। শুধুমাত্র পৌরসভার রাজস্ব আয় থেকে বেতন ভাতা গ্রহণ করার কারণে অনেক সময় চার-পাঁচ মাস পর্যন্ত বেতন ভাতা পায় না পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীরা। ফলে প্রায় সময় এসব কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বেতন-ভাতা না পেয়ে তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করতে বাধ্য হয়।
বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের সদিচ্ছার অভাবে পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীরা আজ বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন এবং তাদের ন্যার্য দাবী থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। বক্তারা বলেন, পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ন্যার্য দাবীর প্রতি সরকার যদি কর্ণপাত না করে তা হলে সারা দেশের ৩২৭টি পৌরসভার সাড়ে ৩২ হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আমরণ অনশন কর্মসূচী পালন করা হবে।
এছাড়া অবস্থান কর্মসূচী থেকে আগামীকাল মঙ্গলবার সকাল ৬ টা থেকে বুধবার সকাল ৬টা পর্যন্ত কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সামনে টানা অবস্থান কর্মসূচী পালনেরও ঘোষনা দেওয়া হয়। অবস্থান কর্মসূচী থেকে অবিলম্বে সরকারি কোষাগার থেকে পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীদের বেতন ভাতা পরিশোধের দাবী জানান কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।##