চট্টগ্রামে ডাবের পানি থেকে সাবধান! অজ্ঞান পার্টির চার সদস্য আটক

প্রকাশ: ২৭ আগস্ট, ২০১৯ ৫:২৬ : অপরাহ্ন

গরমে প্রাণ জুড়াতে ডাবের পানির জুড়িমেলা ভার! তবে ডাবের পানি যে শুধু তৃষ্ণা মেটায় তা নয়, স্বাস্থ্যের জন্যও বেশ উপকারী। তবে চট্টগ্রামের ডাবের পানি পান থেকে সাবধান! যেকোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

চট্টগ্রামে সংঘবদ্ধ একটি চক্র ডাব বিক্রেতাদের সঙ্গে আঁতাত করে ডাবের পানিতে অজ্ঞান হওয়ার ওষুধ মিশিয়ে রাখে। ক্রেতারা ডাব কিনে পানি পান করার কিছুক্ষণ পর অচেতন হয়ে পড়লে ওঁৎপেতে থাকা চক্রটি ওই লোক অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে তার সর্বস্ব লুটে নেয়।

মঙ্গলবার (২৭ আগস্ট) দুপুরে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মেহেদী সংবাদ সম্মেলনে এমন তথ্য জানিয়ে বলেন, অজ্ঞান পার্টির চার সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতার চারজন হলো- মো. শহিদুল ইসলাম (৩০), মো. বাবুল (৩৬),  রতন মিয়া (৮৫) ও  মো. হারুন (৩১)। সোমবার (২৬ আগস্ট) সন্ধ্যায় নতুন ব্রিজ এলাকা থেকে বাকলিয়া ও কোতোয়ালী থানার যৌথ অভিযানে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

চারজনের একজন ডাব বিক্রেতা, একজন ক্রেতা ও বাকি দুইজন টার্গেটের আত্মীয় পরিচয় দেয়।

এসএম মেহেদী হাসান বলেন, এ চক্রে বৃদ্ধ সদস্য ডাব বিক্রেতা হিসেবে কাজ করেন। একই জায়গায় আরেকজন ডাব ক্রেতা হিসেবে অবস্থান করেন।

টার্গেট নির্দিষ্ট করার পর বৃদ্ধ ডাব বিক্রেতা ওই লোককে অনুনয় করেন তার কাছ থেকে একটি ডাব কেনার জন্য। এরই বিশ্বাস জমানোর জন্য এ চক্রের অপর সদস্য একটি ডাব কিনেন বৃদ্ধের কাছ থেকে।

সবার সামনে সেটি পান করে ফেলেন। টার্গেট হওয়া ব্যক্তি ফাঁদে পড়ে ডাব কেনার আগ্রহ প্রকাশ করলে তাকে অজ্ঞান হওয়ার ওষুধ মেশানো ডাবটি দেওয়া হয়।

‘ডাব খাওয়ার পর ওই লোক হাঁটা শুরু করলে তার পেছনে এই চক্রের দুই সদস্য হাঁটেন। যদি ওই ব্যক্তি গাড়িতে উঠেন তাহলে তারা দুইজনও গাড়িতে উঠে।

টার্গেট হওয়া ব্যক্তি যদি অজ্ঞান হয়ে যায় তাহলে এ চক্রের সদস্যরা তাকে তাদের আত্মীয় পরিচয় দিয়ে হাসপাতালে নেওয়ার কথা বলে সবার সামনে থেকে তুলে নিয়ে চলে যান। পরে সুবিধামত জায়গায় সব ছিনিয়ে নিয়ে তাকে ফেলে যান। বলেন এস এম মেহেদী হাসান।

তাদের টার্গেটের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মেহেদী হাসান রকি বলেন, ২৪ আগস্ট রাত সাড়ে ৮টার দিকে নিউমার্কেট মোড় থেকে বিশ্ববিদ্যালয় যাওয়ার জন্য গাড়িতে উঠি। এ সময় এক বৃদ্ধ লোক জানালার পাশে এসে তার কাছ থেকে ডাব কেনার অনুরোধ করে। বৃদ্ধ লোকটিকে দেখে খুব অসহায় মনে হওয়ায় অনিচ্ছা সত্ত্বেও একটি ডাব কিনে খাই। পরে আমি অজ্ঞান হয়ে যাই।

সংবাদ সম্মেলনে সিএমপির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) শাহ মুহাম্মদ আবদুর রউফ, চকবাজার জোনের সহকারী কমিশনার মুহাম্মদ রাইসু্ল ইসলাম, কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীনসহ অভিযান পারিচালনাকারী টিমের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।