চট্টগ্রামে পৃথক দুর্ঘটনায় চারজনের মৃত্যু

প্রকাশ: ৭ অক্টোবর, ২০১৯ ৬:১৭ : অপরাহ্ন

চট্টগ্রামে পৃথক ‍তিনটি দুর্ঘটনায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।  সোমবার (৭ অক্টোবর) সকালে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড, বাঁশখালী ও রাউজান উপজেলায় এসব দুর্ঘটনা ঘটেছে।

এর মধ্যে রোববার (৬ অক্টোবর) মধ্যরাতে সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারিতে এইচ এম শিপ ব্রেকিং ইয়ার্ডে মাথায় লোহার পাত পড়ে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।নিহত রবিউল ইসলামের (২১) বাড়ি জামালপুর জেলার ইসলামপুর গ্রামে। তার বাবার নাম হায়াত ফকির।

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শামীম শেখ জানান, মধ্যরাতে ইয়ার্ডটিতে শ্রমিকরা পুরনো জাহাজ কাটায় নিয়োজিত ছিল। এসময় লোহার একটি পাত রবিউলের মাথায় এসে পড়লে সে গুরুতর আহত হয়। পরে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে সোমবার (৭ অক্টোবর) ভোর সাড়ে ছয়টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

এদিকে, চট্টগ্রাম-বাঁশখালী সড়কে কালীপুর ইউনিয়নের পালগ্রামে বাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংর্ঘষে দুজনের মৃত্যু হয়। মৃতরা হলেন- জিয়াউল হক (৪৫) ও টমাস মণ্ডল (৪২)।

বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম বলেন, ‘ভোর সাড়ে ৬টার দিকে চট্টগ্রাম শহর থেকে বাঁশখালীমুখী বাসের সঙ্গে অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে একজন এবং হাসপাতালে নেওয়ার পর আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে। দুজনই অটোরিকশায় ছিলেন।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়িতে দায়িত্বরত সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আলাউদ্দিন তালুকদার বলেন, ‘গুরুতর আহত অবস্থায় জিয়াউল হক নামে একজনকে হাসপাতালে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেছেন। জিয়াউল বাঁশখালী উপজেলার পুঁইছড়ি ইউনিয়নের আব্দুর রশিদের ছেলে।’

অন্যদিকে রাউজান পৌরসভার সুলতানপুর জানালীহাট এলাকায় সোমবার সকাল ৭টার দিকে আরেকটি দুর্ঘটনায় এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। মৃত জয়ব্রত ধর (২৫) পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের লক্ষ্মীব্রত ধরের ছেলে।

চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার জানান, জয়ব্রত নিজেই মোটর সাইকেল চালাচ্ছিলেন। একপর্যায়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটর সাইকেল উল্টে গিয়ে তিনি গুরুতর আহত হন। হাসপাতালে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেছেন।