চাঁটুকার দালাল হতে সাবধান চল যাই যুদ্ধে মাদকের বিরুদ্ধে

প্রকাশ: ৩০ জুন, ২০১৯ ৮:২৩ : অপরাহ্ন

ফরিদুল মোস্তফা খান:
শীর্ষ ইয়াবা স¤্রাট সাইফুল করিম থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়া যে সাংবাদিকের কথা ভাইরাল হচ্ছে, তাকে আইনের আওতায় আনা হচ্ছে না কেন? তার সাথে জড়িত টেকনাফ কক্সবাজারের কোন চাঁটুকার দালাল সাংবাদিকের কোন লেনদেন হয়েছে কিনা খতিয়ে দেখা দরকার। একই সাথে জেলায় মাদক কারবারে জড়িত কথিত সাংবাদিক নাম ধারিদের শাস্তি চাই। হাতে গুণা মুষ্টিময় কয়েক জন সাংবাদিকের অপকর্মের ভার পুরো সাংবাদিক সমাজ নেবেন না।
আইন শৃংখলা বাহিনীর চলমান মাদক বিরোধী অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে আবারো বলছি, তালিকা ভূক্ত প্রকৃত মাদক ব্যবসায়ী ছাড়া আকরামের মত নিরহ কেউ যেন আর ক্ষতিগস্থ না হয়। বিনা কারণে টেকনাফের ক্ষতি গ্রস্থ মজুলুমদের কান্না আহাজারীতে দুনিয়ার বিবেক ক্ষেপলে পরিস্তিতি বেসামাল হয়ে উঠবে। পালিয়ে রক্ষা পাবেনা কোন দালাল, সুবিধাভোগী চাঁটুকার ও মাদক সংশ্লিষ্টরা। বের হবে সবার আর এস বি এস।
মাননীয় প্রধান মন্ত্রী,স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয় ও সরকারের উপর মহল ঘাস কাটছেন না। সব কিছু জেনে যাচ্ছেন। সময় হলে টের পাবেন। ইয়াবা ব্যবসায়ীরা নিজেদের করুন পরিনতির জন্য অপেক্ষা করুন।
মাদকের বিরুদ্ধে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়, পুলিষের উজ্জল নক্ষত্র আইজিপি সহ সামরিক বেসামরিক মহান যে সকল মহা মানব নিজেদের অবস্থান অটুট রেখেছেন, তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞতার শেষ নেই।
ধন্যবাদ চট্ট্রগ্রাম রেঞ্জ পুলিশের ডিআই জি ও কক্সবাজরের সৎ ও দক্ষ পুলিশ সুপার সহ সংশ্লিষ্টদের। দালাল সুবিধাভোগি ও আশপাশে ঘুরঘুর কারা চাঁটুকারদের কাছ থেকে সতর্ক থেকে মাদক নির্মূল করুন। মহান আল্লাহ আপনাদের সহায় হবেন।
মাদক নির্মূলের কথা বলে নিরহ মানুষ হত্যা কারিদের স্বরণ করিয়ে দিতে চাই, বৃটিশ স¤্রাজ্যের জন্য লর্ডস ক্লাইভ কি না করেছেন। শেষ পর্যন্ত বৃটিশ তাকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যা করেছে। ইতিহাস থেকে সবার শিক্ষা নেওয়া দরকার।
আসুন মাদকের বিরুদ্ধে সবাই চলুন যুদ্ধে। সত্যের জয় হবেই ইনশআলাøহ । পীর মুসলিমের এই দেশে ফরিদুল মোস্তফার অভাব নেই। হাজার লক্ষ কোটি সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা ঘাপতি মেরে আছেন। সময় হলে আওয়াজ হবে।
….লেখক : প্রতিষ্ঠা সম্পদক ও প্রকাশক, দৈনিক কক্সবাজারবাণী । এ্যাক্রেডিটেশন কার্ড নং- ৩৯৩৩।