চাকমারকুল মাদ্রাসায় গুলিবর্ষণ ও হামলাকারিদর দষ্টাÍমূলক শাস্তির দাবিত প্রতিবাদ সভা

প্রকাশ: ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ৯:০১ : অপরাহ্ন

রামু প্রতিনিধি ।।জলার বহৎ ও ঐতিহ্যবাহি চাকমারকুল আল জাময়াতুল ইসলামিয়া দারুল উলুম মাদ্রাসায় গুলিবর্ষণ, ভাংচুর, ছাত্রদর অমানবিকভাব নির্যাতনর প্রতিবাদর প্রতিবাদ সভা করছন, এলাকাবাসী এবং মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীবদ। প্রতিবাদ সভায় হামলার মূল হাতা আবদুর রাজ্জাক ও নুরুল আলম সহ জড়িত সকল স¿াসীর দষ্টাÍমূলক শাস্তি দাবি করা হয়। মঙ্গলবার (১০ সপ্টম্বর) এশার নামাজর পর আয়াজিত এ প্রতিবাদ সভায় এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, মাদ্রাসার শিক্ষকগণ বক্তব্য রাখন। এত সভাপতির বক্তব্য মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা সিরাজুল ইসলাম বলন, হামলাকারি চক্রটি দীর্ঘদিন ঐহিত্যবাহি এ মাদ্রাসাক ধঃসর পায়তারা চালাছ। পবিত্র আল্লাহর ঘর মসজিদ ও মাদ্রাসায় এভাব গুলিবর্ষণ, ভাংচুর ও নিরীহ ছাত্রদর মারধর করা হব তা ছিলা কল্পনাতীত। তিনি আরা বলন, সকল ষড়য¿ প্রতিহত কর এ মাদ্রাসার শিক্ষা কার্যক্রম সুষ্ঠুভাব পরিচালিত হব। মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদর নির্ভয় দ্বীনি শিক্ষা চালিয় যাওয়ার অনুরাধ জানিয় তিনি বলন, কষ্ট ছাড়া কখনা দ্বীনি শিক্ষা অর্জন সম্ভব নয়। কষ্টর প্রতিদান আল্লাহপাক অবশ্যই দবন। যারা মসজিদ-মাদ্রাসায় গুলিবর্ষণ ও হামলা চালায় তাদর করুন পরিনতি হব। কারন মসজিদ মাদ্রাসার বিরুদ্ধ ষড়য¿ কর অতীত কউ পার পায়নি। এবারও পাব না। সভায় বক্তারা প্রশাসনক অনতিবিলম্ব এ হামলার ঘটনায় জড়িত আবদুর
রাজ্জাক ও নুরুল আলম সহ সকল চিহ্নিত স¿াসীক আইনর আওতায় আনার জার দাবি জানিয় বলন, হামলাকারিরা এখন উল্টা মামলা দায়র সহ মাদ্রাসার মুহতামিম, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদর উপর আবারা হামলার হুমকী দিছ। প্রশাসন এ ঘটনার যথাযথ ব্যব¯া না নিল হামলাকারিরা আবারা বড় ধরনর অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাত পার। তাই সময় থাকতই পুলিশ ও উপজলা প্রশাসনক কঠার ব্যব¯া নিত হব। সভায় চাকমারকুল আল জাময়াতুল ইসলামিয়া দারুল উলুম মাদ্রাসার
সিনিয়র শিক্ষক মূফতি হাবিব উল্লাহ, মাওলানা মাহাম্মদ সালাইমান, মাওলানা আবুল কালাম, মাওলানা নুরুল হক, মাওলানা নিয়ামত উল্লাহ, মাওলানা ছিদ্দিক আহমদ , ¯ানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গও মধ্য আবদুল খালক, মাওলানা আবদুল গফুর, সিরাজ মওলা সহ মাদ্রাসার সকল শিক্ষক-ছাত্র এবং এলাকার সর্ব¯রর জনতা উপ¯িত ছিলন।উল্লখ্য সামবার (৯ সপ্টম্বর) সন্ধ্যা ৭ টায় চাকমারকুল মাদ্রাসার বহি¯ত
শিক্ষক আবদুর রাজ্জাকর নতত্ব গুলিবর্ষণ, হামলা ও ভাংচুরর ঘটনা ঘট। এ ঘটনায় মাদ্রাসার ৮ জন ছাত্র আহত হয়। রামু উপজলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা ও রামু থানার ওসি (তদÍ) মিজানুর রহমান ঘটনা¯ল গিয় পরি¯িতি নিয়¿ণ আনন। এ ঘটনায় জড়িতদর বিরুদ্ধ মামলা করার জন্য ইউএনও তাৎক্ষণিক ওসিক নির্দশ দন। তব মঙ্গলবার রাত পর্যÍ এ ঘটনায় কাউক আটক করত পারনি পুলিশ। তব মামলার প্রক্রিয়া চলছ বল জানা গছ।
### সায়ব সাঈদ রামু প্রতিনিধি ১০ সপ্টম্বর ২০১৯ মাবাইল ঃ ০১৮১৭-৬৪৬৮২৫