ডা. নাহিদা খানম (রমজানে স্কুল!)

প্রকাশ: ১০ মে, ২০১৯ ৩:১৭ : অপরাহ্ন

আগে আমাদের সময় রমজান মানে স্কুল ছুটি। খুব কম বয়স থেকে রোযা থাকার অভ্যাস শুরু হতো। ছেলেরা সন্ধ্যার পর মসজিদে তারাবীহ্‌ পড়তে যেত। এখন দেখবেন রোজার সময় স্কুল খোলা, প্রচণ্ড গরমে স্কুলে যাচ্ছে বাচ্চারা,তাই রোজা নিয়ে কারো চিন্তা নাই। সন্ধ্যায় বাড়ির কাজের জন্য তারাবীহ পড়তে আগ্রহী না। যে স্কুলগুলোতে ছোট মেয়েদের হিজাব নিয়ে রীতিমত মার্শল ল’ জারি আছে, সেই সব স্কুল, রোজার দিনে স্কুল চালাতে দেখে, আমি হতাশ। স্কুলের সময়সূচি অল্প পরিবর্তন করলেও, তেমন অপকার হবে না। বরঞ্চ এই নিয়ম চলতে থাকলে, নতুন প্রজন্ম ইসলামের ভাবনায় অনুৎসাহিত হবে। আল্লাহর পথে চলার নামাজ- রোযা বাদ দিয়ে অন্য ভুল পথে ইসলাম খুঁজবে। আমি জানি না, আমাদের প্রিয় শিক্ষামন্ত্রী এই ব্যাপারটি ভাবনায় আনবেন কিনা। কোমলমতি শিশুদের রমজানের মহিমায় মহিমান্বিত করার জন্য বিবেচনা করুন দয়া করে।