ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের এর উদ্যেগে কক্সবাজারের যানজট নিরসনের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন:

প্রকাশ: ৫ আগস্ট, ২০১৯ ১০:৫৪ : অপরাহ্ন

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

যানবাহনের দীর্ঘ যানজট এবং শব্দ দুষনের কারণে পর্যটননগরী কক্সবাজার শহর প্রায় অচল হয়ে পড়েছে। শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট বাস টার্মিনাল, বাজার ঘাটা, পান বাজার, হাসপাতাল সড়ক, হলিডে মোড়, কলাতলী সড়ক ও মোড় গুলোতে প্রায় তীব্র যানজট লেগে থাকে। নগরীতে অপরিকল্পিত ভাবে যানবাহনের সংখ্যা বৃদ্ধি, ব্যাটারি এবং সএিনজচিালতি অটোরিক্সা, অদক্ষ চালক, পর্যাপ্ত ট্রাফিক পুলিশের অভাব, হকারদের ফুটপাত দখল যানজটের অন্যতম কারণ। এছাড়া দূরপাল্লার বাস-ট্রাক নগরীতে প্রবেশের কারণে পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করে। পর্যটন নগরীর ভয়াবহ যানজট দেশি-বিদেশি পর্যটকসহ সকলের জন্যই ভোগান্তি সৃষ্টি করেছে যাতে করে কক্সবাজার শহরের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত একটানা যানজটে অতিষ্ঠ হয়েছে সবাই।

সোমবার (৫ আগস্ট) বিশ্বের দীর্ঘতম সৈকত নগরী কক্সবাজারের সাম্প্রতিক সময়ে ক্রমবর্ধমান যানজট নিরসনের দাবিতে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের রাজনৈতিক ফেলো তানজিদ ওয়াহিদ লোটাস এবং শওকত হোছানের উদ্যোগে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনের বক্তারা একথা বলেন। সকাল ১১টায় কক্সবাজার প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এই যৌথ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে এক লিখিত বক্তব্যে আয়োজকবৃন্দ বলেন, কক্সবাজার শহরে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে বিশেষ করে বাস টার্মিনাল, বাজার ঘাটা, পান বাজার, হাসপাতাল সড়ক, হলিডে মোড়, কলাতলী সড়ক ও মোড় গুলোতে প্রায় তীব্র যানজট লেগে থাকে। নগরিতে অপরিকল্পিত ভাবে যানবাহনের সংখ্যা বৃদ্ধি, ব্যাটারি এবং সএিনজচিালতি অটোরক্সিা, অদক্ষ চালক, পর্যাপ্ত ট্রাফিক পুলিশের অভাব, হকারদের ফুটপাত দখল যানজটের অন্যতম কারণ। এছাড়া দূরপাল্লার বাস-ট্রাক নগরীতে প্রবেশের কারণে পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করে। পর্যটন নগরীর ভয়াবহ যানজট দেশি-বিদেশি পর্যটকসহ সকলের জন্যই ভোগান্তি সৃষ্টি করেছে যাতে করে কক্সবাজার শহরের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে। আয়োজকবৃন্দ যানজটে ভুক্তভোগী ৩০০ নগরবাসীর গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করেন এবং সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের কাছে এর আগে জনগণের মতামত তুলে ধরে পিটিশন দাখিল করেন। এই তরুণ আয়োজকবৃন্দ যানজট নিরসনে কর্তৃপক্ষের সামনে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সুপারিশ তুলে ধরে বলেন, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সদয় দৃষ্টি এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণরে মাধ্যমে পরকিল্পতি যানবাহনরে রোড পারমটি, নগরীর সড়ক সমূহ প্রশস্ত করা ও প্রধান সড়কগুলোতে ৪ লেইন সড়কে উন্নিতকরণ; র্পযাপ্ত ট্রাফকি পুলশি নয়িোগ; ব্যাটারি এবং সএিনজচিালতি অটোরক্সিা নয়িন্ত্রণ; পরকিল্পতি বাস র্টামনিাল; প্রশক্ষিত চালক নিয়োগ এবং র্সবোপর,আইন এর যথাযথ প্রয়োগরে মাধ্যমে ভয়াবহ এই যানজট সমস্যার সমাধান সম্ভব।

এছাড়া অনুষ্ঠানে আগত রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ, গণমাধ্যমকর্মীরা অংশগ্রহণ করেন এবং যানজটে কক্সবাজারে জনদূর্ভোগ কমাতে স্থায়ী উদ্যোগ গ্রহণের মত প্রকাশ করেন এবং দুই রাজনৈতিক দলের তরুণ নেতাদের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানান।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সদর উজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হামিদা তাহের। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পৌর কাউন্সিলর দিদারুল ইসলাম রুবেল, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর সাহেনা আকতার পাখি ও ইয়াছমিন আকতার, সাবেক নারী কাউন্সিলর হুমায়রা আকতার। আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নেজাম উদ্দিন শাওন, মানবাধিকার তথ্য পর্যবেক্ষন সোসাইটি কক্সবাজার জেলার সাধারন সম্পাদক(ভারপ্রাপ্ত) আবদুল কাদের, কক্সবাজার সরকারী কলেজের ছাত্রদলের আহবায়ক এম এ হামিদ, যুগ্ন আহবায়ক সালমান বাপ্পী, মহিলা দলের নেত্রী নাসিমা আকতার, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মনুজর আলম সহ অন্যান্য গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সদর উপজেলা ভাইস চেয়াম্যান বলেন, রহিঙ্গা সরনার্থী ও বিভিন্ন এনজিও সংস্থার কর্মীদের মাত্রাতিরিক্ত যানবাহন, অতিরিক্ত টমটম এর কারনে শহরে অসহনীয় যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। যানজট নিয়ন্ত্রনে অবৈধ টমটম নিয়ন্ত্রন করা প্রয়োজন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কাউন্সিলর দিদারুল ইসলাম বলেন, লাইসেন্স প্রাপ্ত দুইহাজার পাচশত টমটম এর বিপরীতে প্রায় ছয় হাজার টমটম নগওে বিচরন করছে। ফলে পর্যটন নগরের যানজট অসহনীয় পর্যায়ে পৌছেছে। অবৈধ টমটম নিয়ন্ত্রনে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে পুনারায় রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করে অবৈধ টমটম নিষিদ্ধ করা হবে।