বাঁধই কাল হলো মধ্যম নাপিতখালীর গ্রামটি

প্রকাশ: ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১১:১৮ : অপরাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক,ঈদগাঁও।।
বাঁধই যেন কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে সদরের ইসলামপুরের  মধ্য নাপিতখালী গ্রামটি। বিগত বছর রেললাইনের কাজ ধুমধামে শুরু করা হলেও অপরিকল্পিত কাজ করায় বর্ষা মৌসুমে বিপাকে পড়েছেন স্থানীয়রা। পানি নিষ্কাশনের প্রয়োজনীয় কোন ব্যবস্থা না থাকায় বৃষ্টির ফলে পানি বন্দি হয়ে পড়ে মধ্য নাপিতখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,নুরানি মাদ্রাসা ও মসজিদ যাওয়ার একমাত্র জন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। জলাবদ্ধতা হয়ে পড়েছে বহু চাষের জমি এবং ঘরবাড়ি। যাতে করে,চরম দুর্ভোগে পড়েছে এলাকার কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ মুসল্লী ও স্থানীয়রা। স্থানীয় লোক জনের মতে,পুরো এলাকা পানি বন্দি হওয়ার ফলে ছেলে-মেয়েরা ঠিক মত স্কুলে যেতে না পারায় পড়াশোনার চরম ব্যাঘাত হচ্ছে। যার ফলে পড়াশোনায় অমনোযোগী হয়ে পড়ছে। তাদের অভিযোগ,দীর্ঘ বছরের রাস্তা মধ্য নাপিত খালী থেকে ইসলামপুর বাজার এবং বটতলী যাওয়ার সহজ ও কাছের মাধ্যম হচ্ছে এ সড়ক। এলাকার কৃষক দের মতে,অল্প জমিতে চাষ করে নিজের পরিবারের সদস্যদের মুখে দু’মুঠো ভাত তুলে দিতাম। কিন্তু পানি নিষ্কাশনের কোন বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় মুখের ভাতটুকু যেন কেড়ে নিল রেললাইন। এমন অবস্থা চলতে থাকলে পরিবারের আহার জোগাড় করতে ভিক্ষার থালা নিয়ে পথে বসতে হবে। তবে এলাকাবাসীর দাবী,পানি নিস্কাষনের সুব্যবস্থার মাধ্যমে পানিবন্দি জীবদ্দশা থেকে পরিত্রাণ দেয়া হোক।
ইউনিয়ন আ,লীগের সাধারন সম্পাদক শাহজাহান চৌধুরী এ প্রতিবেদককে জানান,বাধঁই কাল হলো মধ্যম নাপিত খালীর গ্রামটির। এককথায় দূর্ভোগ আর মরন দশায় পরিনত হয়ে পড়েছে। অতিসত্তর পানি নিস্কাষনের সু ব্যবস্থা করার দাবী জানান।
সমাজ সেবক ও রাজনীতিবিদ শরীফ কোম্পানী জানান,
বিগত বেশ কয়েকমাস পূর্বে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের নিকট উপ রোক্ত বিষয়ের আলোকে একটি আবেদন দেয়া হয়েছিল। কিন্তু অধ্যবদি পর্যন্ত ও সে বিষয়ে সিদ্বান্ত গ্রহন করেননি তারা। যার ফলে এলাকাবাসীকে চরম বেকায়দায় পড়তে হয়েছে।