মহেশখালীতে চলাচলের রাস্তা না থাকায় ধান ক্ষেতের উপর দিয়ে লাশ বহন !

প্রকাশ: ২৪ আগস্ট, ২০১৯ ১১:২৫ : অপরাহ্ন

মহেশখালী প্রতিনিধি।।

ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের পুটির জিরির উত্তরকুল নামক এলাকায় চলাচলের রাস্তা না থাকায় ধান ক্ষেতের উপর দিয়ে লাশবাহী খাটঁ বহন করে নিয়ে যেতে হচ্ছে দেখার কেউ নাই। তথ্য নিয়ে জানাযায়, পুটির জিরির ব্রীজ হইতে মাইজপাড়া পযর্ন্ত চলাচলের রাস্তা ছিল কিছু মানুষ রুপী অমানুষ চলাচলের রাস্তা কেটেঁ ধানক্ষেতের চাষী জমিতে পরিনত করেছে। অত্র এলাকায় প্রায় ১ হাজার জনবসতি লোকের বসবাস। বসবাসরত লোকেরা অমানবিক ভাবে জীবনযাপন করে আসচ্ছে।

মৃত্যুবাহী লাশ, ঝুকিঁপূর্ন রোগী, বিবাহ অনুষ্ঠান সহ গুরুত্বপূর্ন কোন কাজ করতে পারচ্ছে না নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা থেকে ও না থাকার সামান, তারা নির্বাচন আসলে লোভনীয় প্রলোভন দিয়ে মুল্যবান ভোট আদায় করে নির্বাচিত হয়ে চেয়ারে বসে সব ভুলে যাই সুযোগ পেলে অত্যাচার নির্যাতনের ষ্টীম রুলার চালায়।

২৩ ই আগস্ট দিবাগত রাত অনুমান ৪টার দিকে মৃতু বরণ করেন পুটিরজিরি উত্তরকুল এলাকার মৃত শাহাব মিয়ার পুত্র মোহাম্মদ বকসু তাকে কবরস্থানে দাফনের জন্য ২৪ই আগস্ট বিকাল ২টার সময় আনা হয়েছে ধানক্ষেতের উপর দিয়ে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখাগেছে, চলাচলের কোন রাস্তা না থাকায় লাশবাহী খাটঁ বহন করে আনা হয়েছে ধানক্ষেতের উপর দিয়ে। এ ব্যাপারে সমাজসেবক ও রাজনীতিবিদ সিরাজুল মোস্তফা সিকদার কোম্পানী বাশিঁ জানান, পুর্বে রাস্তা ছিল অযোগ্য ও অদক্ষ নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হওয়ায় মানুষ রুপী কিছু অমানুষেরা রাস্তা বিলীন করে ধানের ক্ষেত করেছে, সার্বিক চিন্তা করতঃ প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দরা পুর্বের রাস্তাটি উদ্ধার করে বসবাসরত প্রায় ১হাজার জনগনের চলাচলের সুযোগ সুবিধা করে দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।

সমাজসেবক ও রাজনীতিবিদ ইন্জিনিয়ার নুরুল ইসলাম জানান, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের সদিচ্ছা না থাকায় পুটিরজিরির এলাকায় বসবাসরত লোকেরা এতকষ্ট পাচ্ছে একটা লাশবাহী খাটঁ যদি ধানক্ষেতের উপর দিয়ে আনতে হয় এটা খুব দুঃখজনক