রোহিঙ্গা শিবিরে নেদারল্যান্ডের শুভেচ্ছাদূত

প্রকাশ: ৩১ জুলাই, ২০১৯ ৬:৩৬ : অপরাহ্ন

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি।সেভ দ্য চিলড্রেন নেদারল্যান্ডের শুভেচ্ছাদূত ও টেলিভিশন উপস্থাপক নাদিয়া মোসাইদ গত সোমবার ও মঙ্গলবার কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করেছেন।

এ দুইদিন তিনি উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবিরের ১৭ ও ১৮ নং এবং টেকনাফের কেরানতলি ২১ নং শিবির পরিদর্শন করেন।

নাদিয়া শিবিরে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী ও শিশুদের সাথে কথা বলেন, তাদের জীবনমান সম্পর্কে জানতে চান এবং সেভ দ্য চিলড্রেনের বিভিন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন।

শিবির পরিদর্শন শেষে তিনি বলেন, “প্রায় এক মিলিয়ন রিফিউজি কক্সবাজারে আশ্রয় নিয়েছে যাদের ৬০ শতাংশই শিশু। এই শিশুরা শিক্ষার সুযোগ পাচ্ছে না, খেলাধুলার সুযোগ পাচ্ছে না এবং একটি অনিশ্চিত ভবিষ্যতের মধ্য দিয়ে বেড়ে উঠছে।

তারা মায়ানমারে বিভিন্ন নৃশংস ঘটনা প্রত্যক্ষ করেছে এবং মানসিক বিপর্যয়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। সেভ দ্য চিলড্রেন মানসিকভাবে বিপর্যস্ত শিশুদের জন্য মেন্টাল হেলথ অ্যান্ড সাইকোসোশ্যাল সাপোর্ট প্রোগ্রামের মাধ্যমে সেবা দেওয়ার চেষ্টা করছে যা খুবই প্রশংসনীয়”।

নাদিয়া সেভ দ্য চিলড্রেনের শিশু বান্ধব কেন্দ্র, অস্থায়ী শিক্ষা কেন্দ্র, প্রাথমিক স্বাস্থ্য চিকিৎসা কেন্দ্র, খাদ্য বন্টন কেন্দ্র ইত্যাদি সেবাকেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেন, “অস্থায়ী শিক্ষা কেন্দ্রে আমি শিশু ও তাদের মায়েদের সাথে কথা বলেছি। আমি মুগ্ধ হয়েছি যে এত কঠিন পরিস্থিতেও শিশুরা সুন্দর ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখছে। মায়েরাও চান তাদের সন্তানরা শিক্ষিত হোক যাতে তারা হারিয়ে যাওয়া প্রজন্ম না হয়, শিক্ষার আলোয় আলোকিত করতে চান সন্তানদের যা আমার হৃদয় ছুঁয়ে গেছে”।

নাদিয়া সেভ দ্য চিলড্রেনে কর্মরত কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবকদের সাথেও তিনি কথা বলেন এবং শিশুবান্ধব প্রোগ্রামের অনেক প্রশংসা করেন।

নেদারল্যান্ডে ফিরে গিয়ে তিনি বিভিন্ন গণমাধ্যমে তার এই সফরের ব্যাপারে স্বাক্ষাৎকার দিবেন এবং রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে কথা বলবেন।

উল্লেখ্য সেভ দ্য চিলড্রেন বাংলাদেশের চারটি জেলায় বার হাজার শিশুসহ মোট বিশ হাজার মানুষের জন্য শর্তহীন নগদ সহায়তা, পানি ও স্যানিটেশন এবং বন্যা সচেতনতা সংক্রান্ত গণবার্তা প্রচার মূলক ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

সেভ দ্য চিলড্রেন কক্সবাজারে কর্মরত শীর্ষস্থানীয় আন্তর্জাতিক সংস্থা যা ২০১৭ সালের অগাস্টের রোহিঙ্গা শরণার্থী সমস্যা শুরুর পর থেকে এযাবত চার লক্ষ শিশুসহ ৭,৪৫,০০০ রোহিঙ্গা এবং স্থানীয় জনগোষ্ঠীর কাছে নানা রকম মাওনবিক সহায়তা পৌঁছেছে।

সেভ দ্য চিলড্রেন তার দুই সহস্রাধিক কর্মীর মাধ্যমে শিশু সুরক্ষা, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও পুষ্টি, পানি এবং স্যানিটেশন পরিসেবার পাশাপাশি আশ্রয় এবং খাদ্য সামগ্রী বিতরন করেছে। আমরা কক্সবাজারের সকল রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

২,৫৩,০০০ শিশুসহ প্রায় অর্ধেক রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে চাল, ডাল, রান্নার তেলসহ নানারকম নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সরবারাহ করছে।