সন্ধ্যায় নিখোঁজ, রাতে লাশ: ধর্ষণের পর হত্যার ধারণা পুলিশের

প্রকাশ: ৬ জুলাই, ২০১৯ ১২:৩৯ : অপরাহ্ন

রাজধানীর ওয়ারীর বনগ্রামে নিখোঁজের দু’ঘণ্টা পর একটি খালি ফ্ল্যাট থেকে সামিয়া আফরিন সায়মা নামে আট বছরের এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শিশুটিকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। সামিয়া আফরিন সায়মা সিলভারডেল স্কুলের ছাত্রী ছিল।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, পুরান ঢাকার নবাবপুরের ব্যবসায়ী আবদুস সালাম ওয়ারী থানার ১৩৯ বনগ্রামের বাড়ির ৬ তলায় নিজের ফ্ল্যাটে পরিবার নিয়ে থাকেন।

শুক্রবার মাগরিবের নামাজের সময় সামিয়া বাসা থেকে নিখোঁজ হয়। অনেক খোঁজাখুঁজির পর রাত সাড়ে ৮টায় একই বাড়ির ৮ তলার একটি খালি ফ্ল্যাটে সামিয়ার লাশ পাওয়া যায়।

ওয়ারী থানার এসআই হারুনুর রশিদ জানান, শিশু সামিয়ার গলায় দাগ রয়েছে। এছাড়া ঠোঁটে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত চিহ্ন পাওয়া গেছে। তাকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এছাড়া খবর পেয়ে সিআইডির একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে হত্যার প্রাথমিক তদন্ত শুরু করেছে বলেও জানান এসআই হারুনুর রশিদ।

ওয়ারী থানার ওসি আজিজুর রহমান বলেন, ওই ভবনের অষ্টম তলার নির্মাণ কাজ পুরো শেষ হয়নি। সেখানে একটি খালি কক্ষ থেকে মেয়েটির লাশ উদ্ধার করা হয়। মেয়েটিকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্তে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ বেরিয়ে আসবে।

নিহত সায়মার বাবা আব্দুস সালাম বলেন, মাগরিবের আজানের সময় আমি নামাজ পড়তে মসজিদে যাই। মসজিদ থেকে ফেরার সময় সন্ধ্যার নাশতা কিনে বাসায় আসি। বাসায় এসে দেখি সায়মা নেই। আমি ও আমার স্ত্রীসহ সায়মাকে খুঁজতে শুরু করি। ছয় তলা ও আট তলায় খুঁজে তাকে পাওয়া যায়নি। পরে আবার আট তলায় তাকে খুঁজতে গিয়ে রান্না ঘরে তার লাশ পাওয়া যায়।