স্কুল-মাদরাসা পর্যায়ে গ্রীস্মকালীন প্রতিযোগিতার প্রস্তুতি সভা

প্রকাশ: ২৪ আগস্ট, ২০১৯ ১০:৫৫ : পূর্বাহ্ন

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া
পহেলা সেপ্টেম্বর থেকে চকরিয়ায় আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হচ্ছে মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের অধীন স্কুল-মাদরাসা পর্যায়ে ৪৮তম গ্রীস্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা। চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা এলাকায় অবস্থিত ৬৫টি উচ্চ বিদ্যালয় ও মাদরাসার শিক্ষার্থীদের নিয়ে ছয়টি অঞ্চলে বিভক্ত করে গ্রীস্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি নিয়েছেন উপজেলা প্রশাসন। প্রতিযোগিতায় স্কুল ও মাদরাসায় ৬ষ্ট শ্রেণী থেকে দশম শ্রেণীতে পড়–য়া ছাত্রদের নিয়ে পাঁচটি অঞ্চলে ও ছাত্রীদের নিয়ে একটি অঞ্চলে টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে।
গ্রীস্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার প্রস্তুতি হিসেবে বুধবার বিকালে চকরিয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ক্রীড়া শিক্ষকদের অংশগ্রহনে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমান।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও কক্সবাজার জেলা ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী। অনুষ্ঠানে দুইটি শিক্ষা প্রতিষ্টানে সততা স্টোর স্থাপনের জন্য মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের পক্ষথেকে অর্থসহায়তা দেয়া হয়। উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউএনও দুটি প্রতিষ্ঠানের প্রধানের হাতে অর্থসহায়তার চেক তুলে দেন।
চকরিয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের একাডেমিক সুপারভাইজার রতন কান্তি বিশ^াসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ নোমান, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম সম্পাদক ও চকরিয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শওকত হোসেন, আওয়ামীলীগ নেতা ও উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য পরিমল বড়–য়া।
চকরিয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের একাডেমিক সুপারভাইজার রতন কান্তি বিশ^াস বলেন, পহেলা সেপ্টেম্বর থেকে চকরিয়ায় আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হচ্ছে মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের অধীন স্কুল-মাদরাসা পর্যায়ে ৪৮তম গ্রীস্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা। চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা এলাকায় অবস্থিত ৬৫টি উচ্চ বিদ্যালয় ও মাদরাসার শিক্ষার্থীদের নিয়ে ছয়টি অঞ্চলে বিভক্ত করে গ্রীস্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি নিয়েছেন উপজেলা প্রশাসন। প্রতিযোগিতায় স্কুল ও মাদরাসায় ৬ষ্ট শ্রেণী থেকে দশম শ্রেণীতে পড়–য়া ছাত্রদের নিয়ে পাঁচটি অঞ্চলে ও ছাত্রীদের নিয়ে একটি অঞ্চলে টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি চকরিয়া উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী বলেছেন, বর্তমান সরকারের সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদেরকে দক্ষ মানব সম্পদ হিসেবে তৈরী করতে কাজ করছেন। সেইজন্য তিনি লেখাপড়ার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক চর্চামুখী করতে নানামুখী উদ্যোগ নিয়েছেন। স্কুল মাদরাসায় বঙ্গবন্ধু বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ প্রবর্তন করেছেন।
তিনি বলেন, লেখাপড়ার সঙ্গে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিতে মনোযুগী থাকলে নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীরা কোনদিন বিপদগামী হবেনা। একই সঙ্গে ক্রীড়া চর্চার মাধ্যমে যুব সমাজকেও নানা অপরাধ প্রবণতা থেকে মুক্ত রাখা সম্ভব হবে। তাই এখন থেকে শিক্ষার্থীদেরকে বিপদগামী থেকে মুক্ত রাখতে চকরিয়া উপজেলার প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লেখাপড়ার সঙ্গে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক কর্মকা-ে মনোযুগী করতে হবে।
চকরিয়া উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী বলেন, বর্তমানে চকরিয়া উপজেলার চারজন তারকা খেলোয়াড় জাতীয় দলে স্থাপন পেয়েছে। আগামীতে নতুন নতুন তারকা খেলোয়াড় তৈরী করতে হবে। যাতে তাঁরা অসাধারণ নৈপুণ্য প্রর্দশনের মাধ্যমে দেশসেরা খ্যাতি অর্জন করতে পারে। সেইজন্য নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থী ও যুবসমাজকে সকল ধরণের অপরাধ প্রবণতা এবং বিপদগামী থেকে মুক্ত রাখতে এবং গ্রামেগঞ্জে ছড়িয়ে থাকা নতুন প্রজন্ম থেকে আগামীদিনের দেশসেরা তারকা খেলোয়াড় তৈরীতে আগামীতে চকরিয়ার প্রতিটি জনপদে খেলাধুলাকে জনপ্রিয় করা হবে। ##