স্লুইসগেট অপসারণের দাবী চাঁন্দেরঘোনাবাসীর

প্রকাশ: ২২ আগস্ট, ২০১৯ ১:২২ : অপরাহ্ন

মিছবাহ উদ্দিন
কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁও চাঁন্দেরঘোনা এলাকায় ২১ লক্ষ টাকা দিয়ে নির্মিত স্লুইসগেটটি এখন অভিশাপ। দ্রুত অপসারণ করা জরুরী। স্লুইসগেট নির্মাণের পর থেকে লাভের চেয়ে ক্ষতি বেশী হয়েছে বলে জানান এলাকাবাসী। চাহিদার চেয়ে ছোট এবং অপরিকল্পিত স্লুইসগেট নির্মাণের কারণে ভারি বৃষ্টিতে ভেঙ্গে গিয়ে চাষাবাদের জমি দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে খালের পাণি। ফলে চাঁন্দেরঘোনা নামার পাড়া থেকে কোনা পাড়া যাওয়ার রাস্তা ভেঙ্গে বিচ্ছিন্ন রয়েছে কয়েক বছর ধরে। শিক্ষার্থী, রুগী এবং কেউ মারা গেলে লাশ দাফনসহ স্থানীয়দের যাবতীয় কাজে ভোগান্তির শেষ নেই। অথচ কয়েকবার গণমাধ্যমে ওঠে আসার পরেও খবর নেই সংশ্লিষ্টদের।

স্থানীয় বাসিন্দা জয়নাল আবদীন জানান, এই স্লুইসগেটটি দ্রুত অপসারণ করা জরুরী কেননা এটা নির্মাণের পর থেকে খালের পাণি চলাচলে বাধার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে চাষাবাদের জমি ভাঙ্গনের মুখে বিলিন হওয়ার পাশাপাশি রাস্তাঘাট ভেঙ্গে জনদূর্ভোগ তৈরী হয়েছে।

ভুক্তভোগী শহিদুল ইসলাম বলেন, স্লুইসগেটটি নির্মাণ স্পট সঠিক হয়নি ফলে লাভের চেয়ে ক্ষতি বেশী হয়েছে স্থানীয়দের। তাই স্লুইসগেটটি হয় অপসারণ নাহয় স্থানান্তর করা প্রয়োজন।

শিক্ষার্থী ইসমাইল হোসাইন বলেন, স্লুইসগেটের কারণে কয়েকবছর ধরে আমাদের রাস্তাঘাট বিচ্ছিন্ন থাকায় শুস্ক মৌসুমে কোনরকম যাতায়াত করতে পারলেও বর্ষা মৌসুমে স্কুল-কলেজে যাওয়া অসম্ভব হয়ে পড়ে। ফলে পড়ালেখার চরম ব্যাঘাত ঘটছে ছাত্র-ছাত্রীদের।

স্থানীয় মহিলা মেম্বার জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, স্লুইসগেটটির কারণে রাস্তার সংস্কার কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না তাই রাস্তা সংস্কারের আগে স্লুইসগেট অপসারণ করা দরকার। সুতরাং কক্সবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাথে যোগাযোগ করে ব্যবস্থা গ্রহণের চেষ্টা চালিয়ে যাবো।