অধ্যক্ষ মাওলানা আবু তাহেরের স্মরণে দোয়া মাহফিল ও কোরআন খানি

প্রকাশ: ১১ মে, ২০২০ ৩:৩০ : অপরাহ্ন

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সাবেক সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল, চট্টগ্রাম মহানগরীর সাবেক আমীর, বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও সমাজসেবক অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ আবু তাহেরের স্মরণে জামায়াতে ইসলামী চট্টগ্রাম মহানগরীর উদ্যোগে আজ ১১ মে, ১৭ রমজান, সোমবার, নগরীর থানা,ওয়ার্ড ও ইউনিটে দোয়া মাহফিল, কোরআন খানি ও মোনাজাতের মাধ্যমে দোয়া দিবস পালন এবং অধ্যক্ষ মাওলানা আবু তাহেরের রুহের মাগফেরাত কামনা করার জন্য সকল নেতা-কর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষের প্রতি নগর জামায়াত নেতৃবৃন্দ আহবান জানিয়েছেন।

চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন থানা, ওয়ার্ডের উদ্যোগে মাহে রমজানের ইবাদত বন্দেগী ও নামাজের সাথে এলাকার স্থানীয় মসজিদ, মাদ্রাসা, এতিমখানাসহ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মরহুম অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ আবু তাহেরের স্মরণে দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

জামায়াতে ইসলামী চট্টগ্রাম মহানগরীর কোতোয়ালী উত্তর ও দক্ষিণ, চকবাজার, বাকলিয়া, পাঁচলাইশ, চান্দগাঁও উত্তর ও দক্ষিণ, ডবলমুরিং, পতেঙ্গা, বন্দর, হালিশহর, সদরঘাট, ইপিজেড, পাহাড়তলী, আকবরশাহ, খুলশী ও বায়েজিদ থানার উদ্যোগে কোরআন খানি ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত দোয়া মাহফিল সমূহে মাওলানা এম.এন.হোসাইন,আবুল হাসনাত, মাওলানা ফখরুল ইসলাম, মাওলানা ইফতেখার উদ্দিন, মাওলানা গোলাম সরওয়ার, মাওলানা নোমান উদ্দিন, অধ্যক্ষ মাওলানা এম.জে. উদ্দিন এর পরিচালনায় দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠানে জামায়াত নেতৃবৃন্দ বলেন, অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ আবু তাহের একাধারে একজন ইসলামী চিন্তাবিদ, রাজনীতিবিদ ও ধর্মীয় এবং সামাজিক নেতৃত্বে দৃঢ় ও বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করেছেন। ছাত্র জীবন থেকেই তিনি ছাত্র ইসলামী আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। তিনি শহীদি কাফেলা ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ছিলেন। ছাত্র জীবন শেষ করে তিনি ঢাকা মগবাজার এম.এ.এস স্কুলে শিক্ষাকতার মাধ্যমে কর্মজীবন শুরু করেন। তিনি আন্দোলন ও সংগঠনে বলিষ্ট ভূমিটা পালন করেছেন। চট্টগ্রামে এসে তিনি আগ্রাবাদ মহুরীপাড়াস্থ আল জাবের ইনস্টিটিউট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। চট্টগ্রাম মহানগরী জামায়াতের সেক্রেটারী ও দীর্ঘ ১৪ বছর আমীর হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০১ সালে তিনি জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারী হিসাবে দায়িত্ব পালন শুরু করেন। মরহুম অধ্যক্ষ মাওলানা আবু তাহের চট্টগ্রাম আন্তর্জাকিত ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, শসসের পাড়া মেডিকেল হাসপাতালসহ বহু ধর্মীয় ও সামাজিক প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেন।

জামায়াত নেতৃবৃন্দ বলেন, তিনি চট্টগ্রামের রাজনৈতিক অঙ্গনে বিশেষ করে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করেন। চট্টগ্রামের সকর ওলামা-মাশায়েখ, রাজনৈতিক ও সামাজিক নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের মানুষের নিকট তিনি ছিলেন একজন গ্রহণযোগ্য ও পরিচিত ব্যক্তিত্ব।

নগর জামায়াত নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, ইসলাম ও ইসলামী আন্দোলনের চট্টগ্রামসহ সারাদেশে ব্যাপক প্রচার ও প্রসারে তাঁর অবদান অবিস্মরণিয় হয়ে থাকবে। নেতৃবৃন্দ মরহুম অধ্যক্ষ মাওলানা আবু তাহেরের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবার বর্গের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেন। আল্লাহ যেন তাঁর সকল নেক আমল কবুল করে, তাঁর অসংখ্য ত্যাগ ও কুরবাণীর বিনিময়ে যাতে জান্নাতুল ফেরদৌস নসিব করেন সেই দোয়া কামনা করেন।