ঈদগাঁও বাসষ্টেশন তিনটি দোকানে তালা মেরেছে বিক্ষুব্ধ ওয়ারিশরা।

প্রকাশ: ২১ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:৪৭ : অপরাহ্ন

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঈদগাঁও, কক্সবাজার
ঈদগাঁও বাস স্টেশনে কয়েকটি দোকানে তালা মেরে বন্ধ করে দিয়েছে বিক্ষুব্ধ ওয়ারিশরা। এক ভাই পৈত্রিক সম্পত্তি একক ভাবে ভোগ করায় অন্য ভাই বোনেরা মিলে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। তবে অভিযুক্ত জন ভাই বোনদের মধ্যে কোন সমস্যা নেই বলে জানান। প্রাপ্ত তথ্যে প্রকাশ, ঈদগাঁও বাসষ্টেশন মৃত লাল মিয়ার মালিকানাধীন ৭৩ শতক জমি রয়েছে। উক্ত জমির একাংশে রয়েছে ১২ টি দোকান এবং অন্য জমি বিভিন্ন জনকে বন্ধক দেয়া হয়েছে। ২০১৬ সালে তিনি মারা যাবার আগ পর্যন্ত একক ভাবে উক্ত দোকানসমূহের সালামি গ্রহণ, ভাড়া উত্তোলনসহ অন্যান্য কার্যাবলী নিজে দেখাশুনা করতেন। তার মৃত্যুর পর ভাই বোন সবাই মিলে তাদের আপন ছোট ভাই ইউসুফ নবী কে উক্ত দায়িত্ব প্রদান করেন। দুই মায়ের তারা ৮ ভাই ৪ বোন রয়েছেন। এর মধ্যে ছোট মায়ের ছোট ছেলে রমজান মিয়া গুরুতর অসুস্থ হয়ে দীর্ঘদিন বিনায়চিকিৎসায় কাতরাচ্ছেন। ভাইদের মধ্যে নুর সিদ্দিক দীর্ঘদিন সৌদি আরবে থাকার পর রমজানের চিকিৎসার জন্য কিছুদিন পূর্বে দেশে আসেন। ভুক্তভোগী বোনদের মধ্যে রয়েছেন নুরনাহার বুলবুল আক্তার মোকাররমা প্রমুখ।এদিকে পিতার মৃত্যুর পর ইউসুফ নবী এককভাবে চুক্তিপত্র করে চারটি দোকান ভাড়া দেন। পুরাতন দোকানগুলোর সংস্কার করা হবে জানিয়ে ভাড়াটিয়াদের কাছ থেকে অতিরিক্ত সালামি আদায় করেন। ভুক্তভোগী নুর সিদ্দিক জানান, তার ছোট ভাই ইউসুফ নবী একাই অন্য সকল ভাই-বোনদের সম্পত্তি দখল করে আছে। এ ব্যাপারে তারা সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন ভূমি প্রশাসন, স্থানীয় চেয়ারম্যান সহ বিভিন্ন জনের কাছে ধর্না দিয়েও বিষয়টির সুরাহা করতে পারেননি দোকান ভাড়া বাবদ প্রতিমাসে প্রাপ্ত ৪০-৪২ হাজার টাকা সে একাই ভোগ করে অন্যদের বঞ্চিত করে আসছে। এছাড়া নতুন-পুরাতন দোকান ভাড়া দিয়ে সে প্রায় ২১ থেকে ৩০ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছে। এ ব্যাপারে তার কাছে ভুক্তভোগী ভাই-বোনেরা বারবার কৈফিয়ৎ চাইলেও সে তাদের কোনো সদুত্তর দিচ্ছে না। এমনকি দীর্ঘদিন মৃত্যুশয্যায় শায়িত তাদের ভাই রমজানের চিকিৎসার খরচ চাইলেও সে তা দিতে অস্বীকৃতি জ্ঞাপন করে আসছে। এমতাবস্থায় নিরুপায় হয়ে ভুক্তভোগীরা ইউসুফ নবীর পরিচালনাধীন দোকানগুলো তালা মেরে বন্ধ করে দিয়েছেন এবং সেখানে নিজেরা দিনরাত অবস্থান করছেন। এই ঘটনায় দখলদার ভাইয়ের সাথে ভুক্তভোগী ভাই-বোনদের মারাত্মক সংঘর্ষের আশঙ্কা করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ইউসুফ নবীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, পৈত্রিক সম্পত্তি নিয়ে তাদের ভাইবোনদের মধ্যে কোন বিরোধ নেই। সব ঠিকঠাকভাবে চলতেছে।