ঈদগাঁওতে ডজনাধিক মার্কেটে বিক্রিতে মন্দাভাব

প্রকাশ: ২৯ জুলাই, ২০২০ ৩:২৮ : অপরাহ্ন

এম আবু হেনা সাগর,ঈদগাঁও

সদরের বৃহত্তর বানিজ্যিক উপশহর ঈদগাঁও বাজারের ডজনাধিক মার্কেটে ঈদুল আযহাকে ঘিরে বেচাবিক্রি মন্দাভাব বিরাজ করছে। এই নিয়ে বিপাকে পড়েছেন বিক্রেতারা। মুসলমানদের অন্যতম উৎসব ঈদুল আযহা যতই ঘনিয়ে আসছে, ততই ক্রেতা কোরবানীর পশু বাজার ও মসল্লা সামগ্রীর দোকানে ভীড় করছেন। সেই লক্ষে কাপড় কেনাকাটায় মার্কেটমুখী হচ্ছেনা লোকজন।

জানা যায়, ঈদগাঁও বাজারের ডজনাধিক মার্কেটে কদিন ধরে মন্দাভাব শুরু হয়েছে ঈদের কেনাকাটায়। তৎমধ্য নিউ মার্কেট, বেদার মার্কেট,হাজী মার্কেট,মাতবর মার্কেট, দারুল হেরা মার্কেট,নুর শপিং মার্কেট,শফি সুপার মার্কেট,নুর এ ছকিনা মার্কেট, জাপান মার্কেট,রহমানিয়া শপিং মার্কেট ও বাজারের বহুল পরিচিত পশ্চিম গলি খ্যাত কাপড়ের দোকানগুলোতে।

২৯ জুলাই বিকেলে ঈদগাঁও বাজারের বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে দেখা যায়, ব্যবসায়ীরা ঢাকা-শহর থেকে ক্রেতাদের পছন্দ মোতাবেক মালামাল এনেছে বিক্রি করতে। বিভিন্ন ব্রান্ডের কসমেটিক,জুতা ও কাপড় সামগ্রী। পাশাপাশি ঈদকে সামনে রেখে দুরদুরান্তের ক্রেতা দের দৃষ্টি আকর্ষন বাড়াতে মার্কেটগুলোতে মালামালে ভরপুর করে তুলেছে। কিন্তু সে অনুপাতে বেচাবিক্রি চোখে পড়ছেনা। এতে তারা ব্যবসায়ীক মন্দাভাবে বন্দি হয়ে পড়েছে।

এ জনবহুল বাজারে বৃহত্তর ঈদগাঁওর ইসলামপুর, ইসলামাবাদ, জালালাবাদ,পোকখালী,চৌফলদন্ডী, ভারুয়াখালী ও ঈদগাঁওর প্রত্যান্ত জনপদের লোকজনসহ পাশ্ববর্তী রামুর ঈদগড়,রশিদনগর, জোয়ারিয়ানালা, খুটাখালীর মানুষজন ও ঈদের কেনাকাটা করতে আসছে কম সংখ্যক।

এ বিষয়ে কজন ক্রেতার সাথে কথা হলে তারা জানান, এবার মানুষ পশু বাজারমুখী। সে কারনে মার্কেটগুলোতে বেচাবিক্রি একটু কম।