শিরোনাম:

ঈদগড় -ঈদগাহ সড়কের হিমছড়ি ঢালায় ডাকাতি,হতাহত-৩

প্রকাশ: ৮ অক্টোবর, ২০২০ ১২:৩৮ : অপরাহ্ন

হামিদুল হক/কামাল শিশির, ঈদগড়।।
কক্সবাজারের সদরের ঈদগড় – ঈদগাহ সড়কের হিমছড়ি ঢালায় ডাকাতি দুই ব্যক্তি আহত ও ১ব্যক্তি নিহত হয়েছে।
জানা যায়, ৮ অক্টোবর  বৃহস্পতিবার  সকাল ৮টায়  ঈদগাহ থেকে ঈদগড় অভিমূখী একটি সিএজি গাড়ি যার নং: কক্সবাজার থ১১ ঈদগড় পূর্ব রাজবঘাট গ্রামের তপন কান্তি দে এর ছেলে জনি দে রাজ সহ ৫ জন যাত্রী নিয়ে ঈদগড় আসার পথে হিমছড়ি ঢালায় ডাকাতের কবলে পড়ে।এসময় ডাকাতদের গুলিতে ঈদগড় ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা তপন কান্তি দে এর ছেলে জনি দে রাজ(১৮)গুলি বৃদ্ধ হয়ে সাথে-সাথেই মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।পথচারীরা  উদ্ধার করে তাকে হাসপাতালে নেওয়ার পথিমধ্যে মৃত্যুবরণ করে।অপর দুই ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়।এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তাদের সঠিক নাম পাওয়া যায়নি।তাদের কে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদরে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানা যায়। প্রাপ্ত তথ্যমতে, উক্ত জনি দে ঈদগাহ ফরিদ আহমদ কলেজ এর দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র এবং পেশায় একজন শিল্পী।এদিকে জনি দে এর মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে শোকের ছায়া নেমে আসে।জনি দে কে এক নজরে দেখার জন্য ঈদগাহ মেডিকেলে ছুটে  যাচ্ছে অনেক ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষী।এ ব্যাপারে আজ ১১ টায় ঈদগাহ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আব্দুল হালিম এর সাথে মুঠোফোনে কথা হলে, ডাকাতের গুলিতে এক ব্যক্তি মারা যাওয়ার কথা শুনেছেন বলে তিনি জানান।বর্তমানে এই সড়কে সরকারি নিয়ম বেঁধে দেওয়া সকাল থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত পুলিশ থাকার নিয়ম থাকলেও যথাসময়ে কেন পুলিশ ডিউটি তে যায়না এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি তা এড়িয়ে গিয়ে বলেন,খুব ভোরেই পুলিশদল কে নির্ধারিত স্থানে পাঠিয়ে দেওয়া হয় বলে জানান।পুলিশ গেলে কিভাবে ডাকাতি হলো এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি সদুত্তর দিতে ব্যর্থ হন এবং যারা ডিউটি তে গেছে তাদের কাছ থেকে বিষয়টি জেনে নিবেন বলে জানান