শিরোনাম:

কক্সবাজারে দুই আওয়ামী লীগ নেতার মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনাঃ ঈদগাঁওতে রাজপথ অবরোধ

প্রকাশ: ১৭ জানুয়ারী, ২০২১ ১১:৩৬ : অপরাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার
কক্সবাজার বিমানবন্দরে আওয়ামী লীগের দুই নেতার মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। ১৭ জানুয়ারী বিকালে কক্সবাজার বিমানবন্দরে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় দপ্তর ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়ার আগমন উপলক্ষ্যে উনাকে অভ্যর্তনা জানাতে গিয়ে এ অপ্রিতীকর ঘটনা ঘটে। পরে উপস্থিত শীর্ষ নেতাদের হন্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, রবিবার বিকাল ৪ টার দিকে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়ুয়ার আগমন উপলক্ষ্যে কক্সবাজার বিমানবন্দরে সমবেত হন বেশ কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা।  আগত অতিথি আসার আগেই সদর উপজেল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল করিম মাদু সহ অন্যান্য নেতারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। এর কিছুক্ষণ পরেই সদর আসনের সংসদ সদস্য সহ বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্চে প্রবেশ করেন জালালবাদ ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক  সাধারণ সম্পাদক ইমরুল হাসান রাশেদ সহ কয়েকজন। কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই মাহমুদুল করিম মাদু এবং ইমরুল হাসান রাশেদের মধ্যে হাতাহাতি (মারামারি) শুরু হয়ে যায়। সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল করিম হামলার ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, অনর্থক তার ইমেজ ক্ষুণ্ন করার জন্য হামলার কথা বলা হচ্ছে। অন্যদিকে জালালাবাদ চেয়ারম্যান ইমরুল রাশেদ দাবি করেন পরিকল্পিতভাবে তার উপর হামলা করা হয়েছে আহত অবস্থায় বর্তমানে তিনি জেলা সদর হাসপাতালে চিকিত্স নিচ্ছেন। অপ্রীতিকর ঘটনায় বিমানবন্দরে আসা শীর্ষ নেতারা সহ সবাই হতাবক হয়ে পড়েন। পরে শীর্ষ নেতারা পরিস্থিতি শান্ত করে দুই জনকে আলাদা করেন। এদিকে ঘটনা জানাজানি হলে আওয়ামী লীগ নেতাদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। অনেকে মন্তব্য করছেন এ দুই নেতার মধ্যে পূর্বের কোন বিষয় নিয়ে মনোমালিন্য ছিল। তাই এর রেশ হিসাবে এখানে মারামারি হয়।
 এদিকে এ সংবাদ মুহুর্তেই সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে। সাথে সাথে বিক্ষুব্ধ ঈদগাঁও, জালালাবাদ, ইসলামাবাদ ও আশপাশের এলাকার ছাত্রলীগ, শ্রমিক লীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা বিক্ষোভ মিছিল রেব করে।  ঈদগাঁও বাজার, বাসস্টেশনে কক্সবাজার-চট্রগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে। মহাসড়ক অবরোধের ফলে আটকে পড়ে শতশত দুরপাল্লার গাড়ি। তারা বাসস্টেশনে বিক্ষোভ অব্যাহত রাখে। ঈদগাঁও বাসস্টেশনের উত্তর ও দক্ষিণে মহাসড়কে প্রায় ২০ কিমি পর্যন্ত তীব্র যানজট লেগে থাকে। বন্ধ থাকে কয়েক ঘণ্টা যানবাহন চলাচল।