বেতার সর্বাপেক্ষা প্রাচীন ও জনপ্রিয় গণমাধ্যম

প্রকাশ: ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ ১:৪৫ : অপরাহ্ন

মোঃ রেজাউল করিম, কক্সবাজার বেতার ভবন।

বেতার শুধু বিনোদনের মাধ্যম নয়, শিক্ষার মাধ্যম ও বটে। আবহাওয়ার খবরের জন্য নদীমাতৃক এলাকার একমাত্র সম্বল রেডিও। জাতীয় জীবনের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে, সংকটে বা দুর্যোগে আমাদের জন্য রেডিও প্রেরণাদায়ক। ‘বেতার এবং বৈচিত্র্য’ প্রতিপাদ্যে কক্সবাজারে আজ বিশ্ব বেতার দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেছেন। বাংলাদেশ বেতার, কক্সবাজার এ উপলক্ষে সকালে একটি বর্ণাঢ্য রেলীর আয়োজন করে। বেতার ভবন প্রাঙ্গণ থেকে শুরু হয়ে তা পার্শ্ববর্তী সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে বেতার ভবন প্রাঙ্গণে আঞ্চলিক পরিচালক মো ফখরুল করিমের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হুসাইন।আমন্ত্রিতদের মধ্যে বক্তব্য দেন কক্সবাজার সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ এ কে এম ফজলুল হক চৌধুরী, কক্সবাজার পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রকৌশলী প্রদীপ্ত খীসা, ইউনিসেফের c4d স্পেশালিস্ট মোহাম্মদ আলমগীর, রেডিও নাফ এর পরিচালক রাশিদুল আজিম, বাচিক শিল্পী জসীমউদ্দীন বকুল ও নাট্য নির্দেশক স্বপন ভট্টাচার্য্য। শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন উপ-আঞ্চলিক পরিচালক রিপন কুমার ভদ্র। এ সময় উপ-আঞ্চলিক প্রকৌশলী রাশেদুুুল আজম সিকদার,  সহকারি পরিচালক (অনুষ্ঠান) কাজী মোঃ নুরুল করিম অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা আরো বলেন, বেতার সর্বাপেক্ষা প্রাচীন ও জনপ্রিয় গণমাধ্যম। মুক্তিযুদ্ধের সময় বেতারের ভূমিকা ছিল অপরিসীম। ১৯৩৯ সালে ‘অল ইন্ডিয়া রেডিও’ নামে বেতারের সম্প্রচার কার্যক্রম শুরু হয়েছিল। ধ্বনি বিস্তার কেন্দ্র নামে এদেশে সর্বপ্রথম স্বল্প পরিসরে বেতারের কার্যক্রম শুরু হয়েছিল। বেতার দিবসের এ অনুষ্ঠানে শিল্পী, সাংবাদিক, কলাকুশলী, কর্মকর্তা, কর্মচারীরা ও সুধীজনরা  অংশ নেন। সমগ্র্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কক্সবাজার বেতারের বার্তা বিভাগের অনুবাদক ও সংবাদ পাঠিকা রোজিনা আক্তার রুজি দীপক বড়ুয়া দিপু। উপস্থিত ছিলেন সংবাদ অনুবাদক মহসিন শেখ, সংবাদদাতা মোঃ রেজাউল করিম, সংবাদ উপস্থাপক সুনীল বড়ুয়া, সংবাদ সাপোর্ট শিল্পী তাসলিমা আক্তার, সাবিহা আক্তার, ইতি, অফিস সহকারি মোঃ ফাহাদ সাকিব, অফিস সহায়ক জ্যোতি মল্লিক বাবু, মোসলেম উদ্দিন প্রমুখ।