বিপদ ও মহামারী কাটাতে অসময়ে আযান

প্রকাশ: ২৭ মার্চ, ২০২০ ১২:১৭ : অপরাহ্ন

নিউজ ডেস্ক।

দেশের বিপদ এবং মহামারী কাটাতে বিভিন্ন মসজিদে আযান হচ্ছে আযান হচ্ছে। কক্সবাজার সদর উপজেলা পিএমখালী,ভারুয়াখালী,রামুর মিঠাছড়ি,উমখালী পেকুয়া,উখিয়া,এবং কুতুবদিয়া সহ বিভিন্ন জায়গার ২৬ মার্চ রাত ১০ টার পর থেকে বিভিন্ন মসজিদ থেকে মাইকে আযান দেওয়া হচ্ছে। এতে সাধারণ মানুষের ভেতরে কৌতুহল অনেকে আবার আংতিক হয়ে উঠেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। বেশির ভাগই হঠাৎ অসময়ে মাইকে আযান শুনে ঘরের বাইরে এসে খোব খবর নিচ্ছে এবং গণমাধ্যমের সাথে যোগাযোগ করছে আসল বিষয় জানান জন্য। পরে বিভিন্ন এলাকার ইমাম এবং সংশ্লিষ্টদের সাথে যোগাযোগ করে জানা গেছে মূলত করোনা ভাইরাসের প্রকোপ কমাতে এবং দেশের উপর সব ধরনের বিপদ কাটাতে আযান দেওয়া হচ্ছে। রাষ্ট্রিয় কোন ঘোষনা না থাকলেও ইমামরা স্বউদ্দোগে আযান দিচ্ছেন। এ ব্যপারে কক্সবাজার ইমাম সমিতির সভাপতি মৌলানা সিরাজুল ইসলাম ছিদ্দিকি বলেন,ইসলামে ১০ টি সময়ে আযান দেওয়ার বিধানআছে। এর মধ্যে দেশের বা এলাকার কোন বিপদ বা মহামারী দেখা দিলে আল্লাহর কাছে ক্ষমা এবং দোয়া চেয়ে আযান দেওয়া যায়। সে হিসাবে এখন বিভিন্ন মসজিদে আযান দেওয়া হচ্ছে। এ ব্যপারে কক্সবাজার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ পরিচালক ফাহমিদা বেগম বলেন,আমিও বিভিন্ন জায়গাতে আযান হচ্ছে বলে খবর পাচ্ছি তবে এ বিষয়ে সরকার বা ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কোন নির্দেশনা বা অনুমতি নেই। তবে কেউ চাইলে দেশের কল্যাণে সবার ভালর জন্য আযান দিতে পারে